মোট প্রদর্শন : 97 Views

পেরুকে হারিয়ে শেষ ষোলোতে ফ্রান্স

মস্কো (রাশিয়া)  স্ট্রাইকার কিলিয়ান এমবাপের একমাত্র গোলে রশিয়া বিশ্বকাপে ‘সি’ গ্রুপ নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে পেরুকে ১-০ গোলে হারিয়েছে ১৯৯৮ সালের চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। এই জয়ে গ্রুপ পর্বে এক ম্যাচ হাতে রেখে বিশ্বকাপের শেষ ষোলোর টিকিট পেল ফরাসিরা। পক্ষান্তরে এই হারে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিলো পেরু।
‘জিতলেই শেষ ষোলোতে’-এমন সমীকরন নিয়ে গ্রুপ পর্বে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নামে ফ্রান্স। অপর দিকে আগের ম্যাচে ডেনমার্কের কাছে হারে বেশ ব্যাকফুটেই ছিলো পেরু। তাই জয়ই প্রধান লক্ষ্য ছিলো দু’দলের। লক্ষ্য যেহেতু এক, তাই মাঠে কৌশলের ফরম্যাটও একই ছিলো ফ্রান্স ও পেরুর। ৪-২-৩-১ ফরম্যাট নিয়ে লড়াই শুরু করে ফ্রান্স ও পেরুর।
প্রথম ১০ মিনিটে দু’টি ভালো আক্রমন করে ফ্রান্সের রক্ষণভাগকে কাপিয়ে দিয়েছিলো পেরু। কিন্তু গোলের দেখা পায়নি।
শুরুতে অগোছালো হলেও ১০ মিনিট পর ম্যাচের নিয়ন্ত্রন নেয় ফ্রান্স। তাই ১১ থেকে ২০ মিনিটের মধ্যে চারবার পেরুর সীমানায় হামলা দেয় ফরাসিরা। স্ট্রাইকার আতোয়ান গ্রিজম্যান ২টি, মিডফিল্ডার পল পগবা ও রক্ষণভাগের রাফায়েল ভারানে ১টি করে গোলের সুযোগ নষ্ট করেন।
গোলের বেশক’টি সুযোগ নষ্ট হলেও, মধ্যমাঠ দিয়ে আক্রমন রচনা করা ফ্রান্সই শেষ পর্যন্ত প্রথম লিড নেয়। ৩৪ মিনিটে পেরুর ডিফেন্সকে কাটিয়ে কিলিয়ান এমবাপেকে পাস দেন অলিভিয়ের গিরুদ। বল পেয়ে আলতো ছোয়ায় গোল করেন ফাঁকায় দাঁড়ানো এমবাপে। এর ফলে ফ্রান্সের হয়ে বিশ্বকাপে সবচেয়ে কম বয়সে গোল করার রেকর্ড গড়লেন এমবাপে। বর্তমানে এমবাপের বয়স ১৯ বছর ১৮৩ দিন। ২০ বছর বয়সে গোল করে আগের রেকর্ডটি এতোদিন দখলে রেখেছিলেন ডেভিড ত্রেজেগুয়েত ও থিয়েরি অঁরি।
এমবাপের রেকর্ড গড়া গোলে এগিয়ে থেকে ম্যাচের প্রথমার্ধ শেষ করে ফ্রান্স। দ্বিতীয়ার্ধের আক্রমনের ধার বাড়িয়ে দেয় পেরু। এজন্য পেরুর আক্রমনের সামনে অসহায় দেখিয়েছে ফরাসিদের।
৬১ মিনিটে পেরু স্ট্রাইকার আন্দ্রে ক্যারিলোর শট গোলবারের উপর দিয়ে চলে যায়। ৭৪ মিনিটে আবারো গোলের ভালো সুযোগ পায় পেরু। এবার গোলের সুযোগ হাতছাড়া করেন দলের আরেক স্ট্রাইকার জেফারসন ফারফান। ক্যারিলোর ক্রস থেকে বল পেয়ে বাইরে শট নেন ফারফান।
ক্যারিলো ও ফারফান যখন ভালো সুযোগগুলো কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন, তখন বুঝা যাচ্ছিলো ভাগ্য আজ সাথে নেই পেরুর। ম্যাচের শেষ দিকে অর্থাৎ ৮৮ মিনিটে স্ট্রাইকার পাওলো গুয়েরোরোর তীব্র শট দৃঢ়তার সাথে রুখে দিয়ে পেরুকে গোল বঞ্চিত করেন ফ্রান্সের গোলরক্ষক হুগো লরিস। শেষ পর্যন্ত ম্যাচে সমতা আনতে না পারায় হারের স্বাদ নিয়ে গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নেয় পেরু। বাসস
আগামী ২৬ জুন মস্কোতে ডেনমার্কের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচ খেলবে ফ্রান্স। একই দিন সোচিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে লড়বে পেরু।